শীতকালের কাঁথা কম্বল থেকে দুর্গন্ধ দূর করার উপায়

শীতকাল প্রায় চলে এসেছে।শীতকালের আসলে একটা প্রবাদ মনে পড়ে যায়"বর্ষার দিনে ছাতা শীতের দিনে কাঁথা"বছরের কয়েকটা মাস শুধু শীত থাকে।এই কয়েকটা মাসের জন্য আমরা কতই না মোটা মোটা কাপড় ব্যবহার করে থাকি। শীতকাল আসলেই প্রত্যেকের বাড়িতে কত রং বেরঙের কাঁথা কম্বল দেখি। তবে বছরের বেশির ভাগ সময়ে লেপ, কাঁথা, কম্বল আলমারি বা ট্রাংকের মধ্যে আবদ্ধ থাকে। বর্ষাকালে স্যাঁতস্যাঁতে আবহাওয়ার কারণে লেপ,কাঁথা,কম্বল এর 

শীতকালের কাঁথা কম্বল থেকে দুর্গন্ধ দূর করার উপায়
শীতকালের কাঁথা কম্বল থেকে দুর্গন্ধ দূর করার উপায়


মধ্যে ভেজা ভেজা গন্ধ ধরে যায়। অনেক সময় দুর্গন্ধ,ভেজা ভাব ও তিল পরে।শীতের শুরুতেই ঝলমলে রোদ দেখা দিলে ও অগ্রহায়ণ মাসের দিকে প্রায় সূর্যের মুখ দেখা যায় না।কার্তিক মাস প্রায় শেষ আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি।আর এই কয়েকদিনের মধ্যে আমাদেরকে লেপ,কাঁথা, কম্বল রোদে দিয়ে ভালো করে উল্টে-পাল্টে শুকিয়ে নিতে হবে।

শীতকালে লেপ, কাঁথা, কম্বল আলমারি বা ট্যাংকে রাখার উপায়

না ভালো করে শুকিয়ে গেলে ন্যাপথলিন দিয়ে রাখতে হবে। তাহলে আর দুর্গন্ধ হবে না পোকামাকড় ধরে না। আর এই বছর করোনা ভাইরাসের জন্য একই জিনিস আমরা  বারবার ব্যবহার ব্যবহার করতে পারব না।কিন্তু লেপ,কাঁথা,কম্বল মোটা হওয়ার কারণে যে কয়েকদিন পর পর ধোঁবেন  তারও কোনো উপায় নেই। ধুলেও ধোয়া যাবে কিন্তু রোদ পাবেন কোথায়। আর সবার বাড়িতে তো প্রয়োজন বেশি লেপ,কাঁথা,কম্বল পাওয়া যায় না।তাই এখন থেকে লেপ কাঁথা কম্বল রোদে দিয়ে আলমারি বা ট্রাংকে না রেখে খোলামেলা জায়গায় রাখুন। লেপ,কাঁথা,কম্বল এর ভাঁজের ফাঁকে ফাঁকে ন্যাপথলিন বা কর্পূর দিয়ে রাখবেন তাহলে সুগন্ধি থাকবে আর পোকামাকড় ও ধরবে না।


এতে আমরা দুটো উপকার পাব (১) দুর্গন্ধ দূর হবে।(২) জীবাণু ধ্বংস করে কোভিড ১৯ হাত থেকে রক্ষা করবে।

 

শীতের দিনে করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচার উপায়


মাফলার বা টুপি সুইটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে খুব বেশি সচেতন হওয়া আমাদের উচিত।কারে এ গুলো সরাসরি নাক কান মুখ স্পর্শ করে থাকে তাই এগুলো বার বার ধোঁয়ার চেষ্টা করবেন।আর ধুতে না পারলে রোদে দিবেন।তা না পারলে বাজারে অনেক ধরনের সেনিটাইজার পাওয়া যায় সেগুলো ব্যবহার করবেন।


Ways to get rid of odors from winter kantha blankets