জেনে নিন বহেড়া ওষুধিক গুনাগুন সম্পর্কে

বহেড়া ফল


:- বহেড়া একধরনের ওষুধক ফল। এর বৈজ্ঞানিক নাম (terminalis belerica)। অনেক বহেড়াকে বিভিতকি বলেও থাকে, তবে ভারতবর্ষে বহেড়া নামে পরিচিত। বহেড়া গাছ সাধারণ রোপন করা দরকার হয় না,নিজে থেকে জঙ্গলে বা রাস্তা ধারে নিজে থেকে জন্মায়। বহেড়া গাছ বেশ বড়ো হয়। প্রাচীনকালে আয়ুর্বেদিক ওষুধ হিসেবে বহেড়ার‌ ব্যবহার অপরিহার্য। ত্রিফলার মধ্যে বহেড়া অন্যতম। বহেড়া ফল প্রথম সবুজ থাকলেও পেকে গেলে বাদামি ও বীজ খুব শক্ত হয়। বহেড়ার বিশেষভাবে ফল, বীজ ও বাকল ওষুধ হিসেবে মানুষের রোধ প্রতিরোধক করতে ব্যবহার হয়ে আসছে আদিকাল থেকে।

জেনে নেওয়া যাক বহেড়া উপকারিতা:-

১. জেনে নিন বহেড়া ওষুধের গুনাগুন সম্পর্কে বহেড়া শাস ১০ গ্রাম এর সাথে ডালিমের রস মিশিয়ে এক সপ্তাহ খেলে কৃমি ভালো হয়।

২. কয়েক টুকরো বহেড়ার শাস ঘিয়ে ভেজে খেলে স্বরভঙ্গ ভালো হয়।

৩. ২ চামচ বহেড়ার গুঁড়ো সাথে ২ চামচ মধু মিশিয়ে ১ সপ্তাহ খেলে শ্বাসকষ্ট ভালো হয়।

৪.  অনেক দিনের পুরোনো রক্ত আমাশয় ভুকছেন তাহলে বহেড়া টুকরো জলের সাথে মিলিয়ে খেলে ভালো উপকার পাওয়া যায়।

৫. মানুষের শরীরে একটি মারাত্বক অসুখ শ্বেতী বলে।এই রোগের তেমন ওষুধ পাওয়া যায় না,সহজে ভালো হয় না। বহেড়া বীজের তেল বের করে প্রায় মিস খানের শ্বেতীর ওপর লাগালে এই রোগ ভালো হয় এবং অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই গাঁয়ের রং স্বাভাবিক হয়।

৬. অনেক অল্প বয়সে চুল পেকে যায় বা অতিরিক্ত চুল ওঠে এর জন্য ২/৩ টি বহেড়া ২কাপ জলে সিদ্ধ করে সেই জল ছেঁকে নিয়ে তার মধ্যে সামান্য নারিকেল বাটা ও মিথি বাটা মিশিয়ে ১৫ দিন চুলে লাগালে চুল পাকা বা চুল ওঠা বন্ধ হয়।