জেনে নিই রসুনের উপকারিতা

আমরা রসুনকে মশলা হিসাবে ব্যবহার করলেও, মানব দেহের বিভিন্ন উপকারে রসুন একান্ত প্রয়োজনীয়।রসুন দুই প্রকার-(১)বহুকোষী রসুন,যার বোটানিক্যাল নাম Allium Sativum Iinn.(২)এককোষী রসুন।যার বোটানিক্যাল নাম Allium Ampeloprasum Iinn. তবে এককোষী রসুনের উপকার বেশী।

আসুন জেনে নিই রসুনের উপকারিতা
আসুন জেনে নিই রসুনের উপকারিতা


রসুনের আছে ভিটামিন A,B,C,D ক্যালসিয়াম,ফসফরাস,আয়রন,আয়োডিন এবং উগ্রশক্তি জীবাণুনাশক ৬ শক্তি।রসুনের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন থাকার ফলে রসুনকে আমার আমিষ খাদ্য বলি।কয়েক বছর পূর্বে রসুনকে কেন্দ্র করে একটি সিমপোসিয়াম  বা আলোচনাচক্রের আয়োজন করা হয়েছিল ক্যালিফোর্নিয়া শহরে।এই আলোচনাচক্রে বিশ্বের রসুন বিশেষজ্ঞ বৈজ্ঞানিকরা উপস্থিত ছিলেন। এক এক দেশের এক একটি বিশেষ রোগের উপর তাঁরা পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাচ্ছেন।তাতে জানা যায়-বাহ্যিক প্রয়োগ সর্বপ্রকার ফোঁড়ায়,বোলতা এবং বিছে কামড়ে রসুন প্রয়োগে ভাল ফল পাওয়া যায়।অভ্যন্তরীণ প্রয়োগে-ধমনীর সঙ্কোচন(arteriosclerosis)কোষ্ঠবদ্ধতায়,হাতে-পায়ে খিল ধরায়,ইনফ্লুয়েঞ্জায়,সদিকাশির প্রবণতায়,হাঁপানিতে,গলাবুক জ্বালায়,অগ্নিমান্দ্য,পিত্তথলির পাথুরী,হাই ব্লাড প্রেসারে,অর্শরোগ,যকৃত দোষে,গলক্ষতে,ক্ষয়রোগে ইত্যাদির রোগের ভালো ফল পাওয়া যায়।

রসুন খাবার নিয়ম:

আমার প্রত্যেক দিন কম বেশি রসুন খাই।কিন্তু রসুন খাবার নিয়ম আমাদের অনেকের কাছেই অজানা।আসুন তবে জেনে নিই রসুন খাবার নিয়ম সম্পর্কে-(১)ঘিয়ে বা তেলে ভেজে শাক কিংবা তরিতরকারীর সাথে খাওয়া যায়।(২)আটা বা ময়দার সাথে রসুন বেটে রুটি বা লুচি করে খাওয়া যায়।(৩)ছাঁতুর সাথে রসুন বাটা খাওয়া যায়।(৪)গরম দুধের সাথে রসুন বাটা খাওয়া যায়।(৫)কাঁচা রসুন বা সিদ্ধ রসুন আহাড়ের প্রথম গ্রাসের সাথে খাওয়া যায়।

রসুনের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়: 

রসুনে প্রচুর ভিটামিন থাকার সত্বেও রসুনের দুর্গন্ধের জন্য অনেকে রসুন খেতে পান না।তবে জেনে নিই রসুনের দুর্গন্ধ দূর করার উপায়-রসুনের খোসা ছাড়িয়ে টুকরো করে টক দইয়ের মধ্যে ডুবিয়ে রেখে পর দিন খাবারের আগে জলে ধুয়ে খেলে গন্ধ লাগে না।


 রসুনের ব্যবহার :

(১) বাতের বেদনায়: প্রতিদিন এক কোয়া রসুন গরম ভাতের সঙ্গে চিবিয়ে খেতে হবে।সরিষার তেলে সামান্য রসুন ভেজে নিয়ে, সেই তেল দিয়ে আক্রান্ত জায়গায় দিনে দুইবার  মালিশ করতে হবে।

(২) যৌবন শক্তি ধরে রাখতে: প্রতিদিন ২চামচ আমলকির রস এর সাথে ২কোয়া রসুন বাটা মিশিয়ে খেতে হবে অন্তত দুমাস।এক্ষেত্রে স্ত্রী ও পুরুষ উভয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

(৩) শরীর ক্ষয়ে: এক কাপ দুধে ২কোয়া রসুন সিদ্ধ করে সেই দুধ খেতে হবে প্রতিদিন।এতে ক্ষয় বন্ধ হয়ে শরীরের শক্তি ও ওজন বৃদ্ধি হয়।

(৪) মাথা ধরা: বায়ুর জন্য মাথা ধরলে ১\২ফোঁটা রসুনের রস নস্যির মতো নাকে টানলে মাথা ধরা সেরে যাবে।

(৫) কুকুর কামড়ালে: প্রতিদিন ৫\৬ ফোঁটা রসুনের রস গরম দুধের সঙ্গে খেলে উপকার হয়।কিন্তু বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসার প্রয়োজন আছে।

(৬) টি.ভি.প্রতিরোধ: প্রতিদিন ১ কোয়া করে রসুন বাটা গরম দুধে মিশিয়ে খেলে টি.ভি.রোগ হওয়ার ভয় থাকে না।